নগরীর বাজার গুলোতে হঠাৎ ভিড়, দামও চড়া

বিশেষ প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ২৭ জুন ২০২১ ০০:৩০; আপডেট: ২৭ জুন ২০২১ ০০:৩১

ফাইল ছবি

রাজশাহী নগরীর সাহেব বাজারসহ বিভিন্ন কাঁচাবাজার গুলোতে সকাল থেকে হঠাৎ ব্যাপক ভীড় বাড়ে। দুপুর ১ টার মধ্যেই মাছ ও সবজির বাজার তরি-তরকারী শূন্য হয়ে যায়। ক্রেতারা অভিযোগ করেন বিভিন্ন পন্যের দাম বেশ চড়া ছিলো। 

সাতদিন কঠোর লকডাউনের ঘোষণায় রাজশাহীর বিভিন্ন বাজারে হঠাৎ করে ভিড় বেড়ে যায়। যার কারণে নিত্যপণ্যের দামেও প্রভাব পড়ে। সরেজমিনে দেখা যায়, রাজশাহী নগরীর সাহেব বাজারসহ বিভিন্ন এলাকার স্থানীয় বাজার গুলোতো ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা যায়। ক্রেতাদের কেউ কেউ ১০-১৫ দিনের বাজার সদাই একবারে করে নিচ্ছেন। ক্রেতাদের চাহিদা দেখে পণ্যের দামও তুলনামূলক বেশি হাঁকেন বিক্রেতারা। মুদি দোকানিরা জানান, সকাল থেকে ক্রেতাদের সমাগম বেশি। কাস্টমাররা চাল, ডাল, তেল, লবণ, মসলা, রসুন, পিয়াজ, আদাসহ বেশিদিন থাকে এমন অপচনশীল পণ্যগুলো বেশি পরিমাণে কিনছেন। এতে আমাদের ব্যস্ততাও বেড়েছে, বিক্রিও বেড়েছে। রোববার ভিড় আরও বাড়বে বলে মনে হচ্ছে। গত দুইদিনে যা বিক্রি হয়েছে আজ একদিনে সেই পরিমাণে বিক্রি হয়। 

এদিকে বিক্রি বেশি হওয়ায় চাহিদা বুঝে ব্যবসায়ীরা পণ্যের দাম বেশি হাঁকছেন বলে অভিযোগ করছেন ক্রেতারা। পিয়াজ, আলু, আদা, রসুন, চাল, ডালসহ বিভিন্ন পণ্যের দাম কিছুটা বাড়তি দেখা যাচ্ছে। তবে কাঁচাবাজারে নৈরাজ্য শুরু হয়ে গেছে। তিনি বলেন, কাঁচা তরকারির দাম একদিনের ব্যবধানে অনেক বেড়ে গেছে। আগে ৪০ টাকা কেজি দরে কেনা তরকারি আজ ৫০-৫৫ টাকা পর্যন্ত দাম চাচ্ছে।  গত সপ্তাহে ৬৬০ টাকায় বিক্রি হওয়া ৫ লিটার বোতল এই সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ৬৮০ টাকা। অর্থাৎ এক সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বেড়েছে ২০ টাকা। দাম বেড়েছে আটা-ময়দারও। খুচরা ব্যবসায়ীরা জানান, এক সপ্তাহের ব্যবধানে প্যাকেট আটার দাম বেড়েছে কেজিতে ১ থেকে ২ টাকা, আর খোলা ময়দার দাম বেড়েছে কেজিতে ৪ থেকে ৫ টাকা। এক সপ্তাহের ব্যবধানে মসুর ডালের দাম কেজিতে ৫ টাকা বেড়েছে। বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা কেজি দরে। বেড়েছে আদার দামও। কেজিতে বেড়েছে ৬০ থেকে ৮০ টাকা পর্যন্ত।

আমদানি করা আদার কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা, যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ১০০ থেকে ১২০ টাকা কেজি। কেজিতে ২০ টাকা বেড়েছে হলুদের দাম। ২০০ টাকা কেজি দরের হলুদ এ সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ২২০ টাকায়। এলাচির দামও বেড়েছে কেজিতে ১০০ টাকা। বেড়েছে চিনির দামও। গত সপ্তাহে প্রতি কেজি চিনি বিক্রি হয়েছিল ৭০ টাকা কেজি দরে। এখন সেই চিনি কেজিতে দুই টাকা বেড়ে ৭২ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এক সপ্তাহের ব্যবধানে ব্রয়লার মুরগির দাম বেড়েছে কেজিতে ৫ টাকার মতো। 



বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top