সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচন ঘিরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন

রাজটাইমস ডেস্ক:  | প্রকাশিত: ৭ মার্চ ২০২৪ ১২:১৯; আপডেট: ২৭ মে ২০২৪ ০৯:৩৮

ছবি: সংগৃহিত

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনের শেষ দিনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এরই মধ্যে ৯ প্লাটুন পুলিশ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির আশপাশে অবস্থান নিয়েছে। সঙ্গে আছেন বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরাও। শুধু সুপ্রিম কোর্ট বার এলাকাতেই নয়, বাইরেও সতর্ক অবস্থানে আছেন পুলিশের অনেক সদস্য।

বৃহস্পতিবার (৭ মার্চ) সকালে সুপ্রিম কোর্ট এলাকায় এমন চিত্র দেখা যায়। সরেজমিন দেখা যায়, মাজার গেটের সামনে ও বাইরে অনেক পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করছেন। সুপ্রিম কোর্টের ভেতরে মাজার পার করেই পুলিশ ফাঁড়ির সামনে রয়েছে অনেক পুলিশ। সেখানে পুলিশের নারী সদস্যদেরকেও দেখা গেছে। সুপ্রিম কোর্টের বার কাউন্সিল গেটসহ সব গেট দিয়ে প্রবেশের সময় পরিচয়পত্র দেখে আদালতের ভেতরে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে।

পুলিশের ব্যাপক উপস্থিতি দেখে আইনজীবীদের মধ্যে অস্বত্বি বিরাজ করছেন। পুলিশের এমন উপস্থিতি দেখে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন।

ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে গতকাল সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ২০২৪-২৫ সালের ভোটগ্রহণ শুরু হয়। নির্বাচনের প্রথম দিনে ৩ হাজার ২৬১ জন আইনজীবী তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। মোট ভোটার ৭ হাজার ৮৮৩ জন।

দুই দিনব্যাপী ভোটগ্রহণের শেষ দিন আজ। সকাল ১০টা ২০ মিনিট থেকে সুপ্রিম কোর্ট বার ভবনের মিলনায়তনে স্থাপিত ৫০টি বুথে একযোগে ভোটগ্রহণ হবে।মাঝখানে এক ঘণ্টার বিরতি দিয়ে বিকেল ৫টা ২০ মিনিট পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে।

নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন বারের সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের। তার সঙ্গে রয়েছেন ৭ সদস্যের কমিটি নির্বাচন পরিচালনা কমিটি। নির্বাচন পরিচালনায় উপ-কমিটিকে সহযোগিতা করছেন ১৫০ আইনজীবী।

আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাদা প্যানেলের প্রার্থীরা হলেন- সভাপতি পদে আবু সাঈদ সাগর, সম্পাদক শাহ মঞ্জুরুল হক, দুই সহ-সভাপতি পদে রমজান আলী শিকদার ও দেওয়ান মোহাম্মদ আবু ওবায়েদ হোসেন সেতু, কোষাধ্যক্ষ পদে মোহাম্মদ নুরুল হুদা আনসারী, দুটি সহ-সম্পাদক পদে হুমায়ুন কবির ও হুমায়ুন কবির পল্লব। সাতটি সদস্য পদে সৌমিত্র সরদার রনী, মো. খালেকুজ্জামান ভূঁইয়া, রাশেদুল হক খোকন, মাহমুদা আফরোজ, বেলাল হোসেন শাহীন, খালেদ মোশাররফ রিপন, রায়হান রনী।

বিএনপি সমর্থিত নীল প্যানেল থেকে মনোনীত প্রার্থীরা হলেন- সভাপতি পদে এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন, সম্পাদক পদে মো. রুহুল কুদ্দুস (কাজল), দুই সহ-সভাপতি পদে মো. হুমায়ুন কবির মঞ্জু ও সরকার তাহমিনা বেগম সন্ধ্যা, কোষাধ্যক্ষ পদে মো. রেজাউল করিম, দুটি সহ-সম্পাদক পদে মাহফুজুর রহমান মিলন ও মো. আব্দুল করিম।

সাতটি সদস্য পদে ফাতিমা আক্তার, সৈয়দ ফজলে এলাহি অভি, মো. শফিকুল ইসলাম শফিক, মো. রাসেল আহমেদ, মো. আশিকুজ্জামান নজরুল, মহিউদ্দিন হানিফ ও মো. ইব্রাহিম খলিল। এই দুই প্যানেলের বাইরে সভাপতি পদে ইউনুছ আলী আকন্দ এবং সাবেক অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল এম কে রহমান নির্বাচন করছেন।

এছাড়া সম্পাদক পদে সাদা ও নীল প্যানেলের বাইরে অ্যাডভোকেট নাহিদ সুলতানা যুথি ও ফরহাদ উদ্দিন আহমেদ ভূইয়া প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নাহিদ সুলতানা যুথি যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশের স্ত্রী। কোষাধ্যক্ষ পদে সাইফুল ইসলাম স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচন করছেন।



বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস
এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top