ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের আহবান

রাজটাইমস ডেস্ক | প্রকাশিত: ২৬ জুলাই ২০২১ ০৮:৫৮; আপডেট: ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১২:১৭

ছবি: সংগৃহিত

অনলাইনে সাধারণ মানুষের মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ওপর চালানো দমনপীড়ন বন্ধ করতে বাংলাদেশি কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানিয়েছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। সোমবার ভোরে প্রচারিত সংস্থাটির এক ব্রিফিং-এ এই আহবান জানানো হয়। নিবর্তনমূলক ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট (ডিএসএ) বাতিল বা আইনটিকে আন্তর্জাতিক মান ও মানবাধিকার আইনের অনুসরণে সংশোধন করারও আহবান জানিয়েছে সংস্থাটি।

‘নো স্পেইস ফর ডিসেন্ট’ শীর্ষক এই ব্রিফিংয়ে সামাজিক মাধ্যমে ক্ষমতাধর ব্যক্তিদের সমালোচনা করায় গুম, বিনাবিচারে আটক ও নির্যাতনের মতো নানান ধরনের মানবাধিকার লঙ্ঘনের শিকার ১০ জন ব্যক্তির বিরুদ্ধে ডিএসএ’র অধীনে দায়েরকৃত মামলা পর্যালোচনা করা হয়েছে।

ব্রিফিং এ বলা হয়, ২০২১ সালের জুলাই মাস পর্যন্ত বাংলাদেশে ডিএসএ’র অধীনে দায়ের হওয়া মামলায় অন্ততপক্ষে ৪৩৩ জন কারাবন্দী আছেন; যাদের বেশিরভাগকেই অনলাইনে ভুল এবং আক্রমাণাত্মক তথ্য প্রকাশের অভিযোগে ধরা হয়েছে। যাদেরকে আইনটির নিশানা বানানো হয়েছে তাদের মধ্যে সাংবাদিক, কার্টুনিস্ট, গায়ক, এক্টিভিস্ট, উদ্যোক্তা, শিক্ষার্থী এমনকি লেখাপড়া না জানা এক কৃষকও রয়েছেন। ডিএসএ’র অধীনে একটি মামলায় লেখক মুশতাক আহমেদ বিচারবিহীনভাবে ১০ মাস ধরে কারাগারে ধুঁকে মৃত্যুবরণ করেছেন। একজন কারাবন্দী অভিযোগ করেছেন তাঁকে নির্যাতন করা হয়েছে।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল'র দক্ষিণ এশিয়া ক্যাম্পেইনার সাদ হাম্মাদি বলেন, ডিএসএ’র আওতায় কর্তৃপক্ষ যে ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে তা থেকেই স্পষ্ট, বর্তমানে বাংলাদেশে কোনো কিছুর প্রতিবাদ করা বা ভিন্নমত পোষণ কতটা বিপদজ্জনক হয়ে উঠেছে। বিভিন্ন ধরনের মতপ্রকাশে এমন অন্যায্য বিধিনিষেধ আরোপ বাংলাদেশি সমাজের সর্বস্তরে ভয়ের বার্তা ছড়িয়েছে এবং স্বাধীন মিডিয়া ও সুশীল সমাজের কাজের পরিসরকে সংকুচিত করেছে।




বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top