চিকিৎসার ফি নির্ধারণ করে দেবে সরকার

রাজটাইমস ডেস্ক | প্রকাশিত: ৭ অক্টোবর ২০২২ ১২:১৩; আপডেট: ৯ ডিসেম্বর ২০২২ ০৯:৩২

ফাইল ছবি

স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণে রোগীর হয়রানি বন্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে সরকার। স্বাস্থ্যসেবার মান বাড়াতে চিকিৎসার মান অনুযায়ী ফি নির্ধারণ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। খবর বণিক বার্তার।

বর্তমানে বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিকগুলোয় পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য ইচ্ছামতো উচ্চমূল্যের ফি নেয়া হয়ে থাকে। যে ব্যয় বহন করতে হিমশিম খেতে হয় সব স্তরের মানুষকেই। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে গতকাল অনুষ্ঠিত এক সভায় এ তথ্য জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, চিকিৎসা ফি নির্ধারণের বিষয়ে বিভিন্ন পক্ষ সরকারের সঙ্গে একমত হয়েছে, দ্রুতই তা বাস্তবায়ন করা হবে।

সরকার অবশ্য গত বছর কয়েক দফায় চিকিৎসকদের ফি নির্ধারণের উদ্যোগ নিলেও কঠোর বিরোধিতায় সে সিদ্ধান্ত থেকে পিছিয়ে আসতে হয়। এবার স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, কোনো হাসপাতালে একটি বিশেষ পরীক্ষার জন্য ১০ হাজার আবার কোথাও ৫০ হাজার নেয়। এই যে বিরাট বৈষম্য, এটি আমরা দূর করতে চাচ্ছি। ফি নির্ধারণের বিষয়ে আমরা একমত হয়েছি, আশা করি দ্রুত কাজটি করতে পারব। মন্ত্রী আরো জানান, হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোকে সেবার মান অনুযায়ী ‘এ’, ‘বি’ ও ‘সি’ ক্যাটাগরি করে দেয়া হবে। আর সেই ক্যাটাগরি নির্ভর করবে প্রতিষ্ঠানগুলোর ব্যবস্থাপনা, বেডের সংখ্যা, জনবল ও যন্ত্রপাতির সংখ্যা কেমন আছে তার ওপর। যারা যে ক্যাটাগরিতে থাকবে, তারা শুধু সেই ক্যাটাগরির স্বাস্থ্যসেবা দিতে পারবে, অন্য কোনো সেবা তারা দিতে পারবে না। অনেক বেসরকারি হাসপাতাল সিজার করে, কিন্তু সিজার করার মতো যাবতীয় ব্যবস্থাপনা সেই হাসপাতালে নেই। এমন হাসপাতালে আর সিজার করতে দেয়া হবে না। হার্টের অপারেশনে যে ব্যবস্থাপনা প্রয়োজন সেই ব্যবস্থাপনা যেসব হাসপাতালে নেই, তাদেরও হার্টের কোনো অপারেশন করতে দেয়া হবে না।

বিভিন্ন হাসপাতালের নানা চার্জ আছে, ফি আছে; সেটিও নির্ধারণ করে দেয়ার চেষ্টা চলছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে বিভিন্ন ধরনের ফি রয়েছে, কোনো হাসপাতালে দেখা যায় একটি বিশেষ পরীক্ষার জন্য কম, আবার অন্য একটি হাসপাতালে সেই একই পরীক্ষার জন্য অনেক বেশি টাকা নেয়া হয়। এই যে বিরাট একটা বৈষম্য, আমরা সেটা দূর করতে চাচ্ছি। যেন জনগণ প্রতারিত না হয়। দেশের দরিদ্র জনগণ যেন কষ্ট না পায়, সঠিক চিকিৎসা পায় এবং সঠিক চিকিৎসার জন্য যেন সঠিক মূল্যটা তারা দেয়, বাড়তি মূল্য যেন দিতে না হয়।

সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব ড. মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম, অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবির প্রমুখ।

নিউজের লিঙ্ক



বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস
এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top