বাঘায় কিশোরীকে গণধর্ষণ: গ্রেপ্তার ৩

বাঘা প্রতিনিধি, রাজশাহী | প্রকাশিত: ১৪ জুন ২০২১ ১৭:৩১; আপডেট: ৩১ জুলাই ২০২১ ০৩:১৯

ধৃত আসামীরা।

রাজশাহীর বাঘায় এক কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগে তিন যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রবিবার (১৩ জুন) দিবাগত রাতে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।

অভিযোগে জানা গেছে, শনিবার সন্ধ্যায় কিশোরীকে মোবাইল করে ডেকে আনে তার ছদ্ম নামীয় প্রেমিক সুমন (২২) আসল নাম আলামিন। বাড়ি বাঘা উপজেলার চন্ডিপুর এলাকায়। তার পিতার নাম মানিক হোসেন বলে জানা গেছে।

কিশোরী অভিযোগে উল্লেখ করেন, বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সুমন তার সাথে এক বছর ধরে প্রেম করে আসছিলেন। সর্বশেষ শনিবার (১২ জুন) সন্ধ্যায় সে ঐ কিশোরীকে মোবাইল করে উপজেলার তেঁথুলিয়া গ্রাম থেকে বাঘা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে ডেকে আনে। এরপর সুমন একটু পরে আসছি বলে তার তিন বন্ধুর কাছে প্রেমিকাকে রেখে চলে যায়।

এদিকে সুমন ঘটনা স্থল থেকে চলে যাওয়ার পর সে আর ফিরে আসেনি। অত:পর বাঘা স্বাস্থ্য কেন্দ্রের পেছনে রাতভর ঐ কিশোরীকে গণধর্ষণ করে ধৃত আসামীরা। তারা হলো তারেক (২৫) পিতা এমদাদ আলী, গ্রাম উত্তর মিলিক বাঘা, আরিফ হোসেন ওরুফে নাসির উদ্দিন (২৩) পিতা সাদেক আলী, গ্রাম মিলিক বাঘা এবং সবুজ আলী (২১) পিতা নহসেন আলী, গ্রাম বাজুবাঘা নতুন পাড়া। আসামীদের নিজ নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, ঘটনার পর দিন রবিবার রাতে ঐ কিশোরী বাঘা থানায় এসে চারজনকে অভিযুক্ত করে একটি গণধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হন। অপর একজন পলাতক রয়েছে। ধৃত আসামীদের সোমবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে বলে তিনি জানান।

  • এসএইচ 


বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top