স্বামী ঈদের নামাজে, ঘরে ঢুকে গৃহবধূকে খুন করলেন প্রেমিক

রাজ টাইমস ডেস্ক : | প্রকাশিত: ১১ এপ্রিল ২০২৪ ২০:৩১; আপডেট: ৩০ মে ২০২৪ ১৬:০১

ছবি: সংগৃহীত

পঞ্চগড়ে ঈদের দিন পরকিয়া প্রেমিকের হাতে শাহনাজ পারভীন (২৫) নামে এক গৃহবধূ খুন হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) সকালে জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার চিলাহাটি ইউনিয়নের মতিয়ারপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গৃহবধূ শাহনাজ ওই এলাকার আব্দুল মজিদের স্ত্রী। নিহত গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। একই সাথে থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে। তবে খুনিকে এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। পুলিশ একটি ছুরি ও রক্তমাখা একটি প্যান্ট জব্দ করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, স্বামী আব্দুল মজিদ ঢাকায় গার্মেন্টসে কাজ করেন। প্রতিবেশি আইনুল হকের ছেলে রাজুর (২৭) সাথে পরকিয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন গৃহবধূ শাহনাজ পারভীন। ৮/৯ মাস আগে কিছুদিন নিখোঁজ ছিলেন ওই গৃহবধূ। এ ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরিও করা হয়। বাড়ি ফিরলে তার স্বামী তাকে গ্রহণ করতে রাজি হননি। পরে তিনি একটি মামলা করেন। মামলার পর আবার দুজনে সমঝোতায় সংসার করতে রাজি হয়।

গত ৪ মাস আগে স্বামীর সাথে ঢাকায় চলে যান তিনি। তাদের সংসাদের ৭ বছরের একটি কন্যা সন্তান ও তিন মাসের একটি ছেলে রয়েছে। গত মঙ্গলবার ঈদ করার জন্য পঞ্চগড়ে ফেরেন তারা। ঈদের দিন সকালে তার স্বামীসহ পরিবারের লোকজন ঈদের নামাজ পড়তে গেলে পরকিয়া প্রেমিক রাজু শাহনাজের ঘরে ঢুকে ছুরি নিয়ে তার উপর আক্রমণ করে। গলা কেটে তাকে হত্যা করে।

এ সময় শাহনাজের মেয়ে মাইশা আক্তার চিৎকার করলে পালিয়ে যায় রাজু। প্রতিবেশিরা ছুটে এসে রক্তাক্ত অবস্থায় ঘরের মেঝেতে তাকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ এসে লাশের সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

নিহত গৃহবধূর মেয়ে মাইশা আক্তার বলেন, আমার মাকে ছুরি দিয়ে মেরে দৌড়ে পালিয়ে গেছে রাজু।

নিহত গৃহবধূর স্বামী আব্দুল মজিদ বলেন, রাজুর সাথে আমার স্ত্রী মোবাইলে কথা বলতো। চলেও গেছিল তার সাথে। তাকে একটি মোবাইল ফোনও দিয়েছিল সে। পরে আমার নামে মামলা করে। আমি সন্তানদের দিকে চেয়ে তাকে নিয়ে ঢাকায় চলে যাই।

রাজু দীর্ঘদিন ধরেই আমাকে হুমকি দিয়ে আসছিলো যে আমাকে শাহনাজের সাথে সংসার করতে দিবে না। আজ আমরা সবাই নামাজে গেলে আমার স্ত্রীর গলা কেটে হত্যা করেছে সে। আমি খুনির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

দেবীগঞ্জ থানার ওসি সরকার ইফতেখারুল মোকাদ্দেম বলেন, ওই গৃহবধূকে গলাকেটে হত্যা করা হয়েছে। আমরা একটি ছুরি ও রক্তমাখা প্যান্ট জব্দ করেছি। লাশ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রক্রিয়া চলছে। অভিযুক্ত রাজুকে গ্রেফতারের জন্য আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।



বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস
এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top