বিএনপির আহবায়ক কমিটি বাতিলের দাবিতে সভা

লালন উদ্দীন, বাঘা | প্রকাশিত: ১৭ জানুয়ারী ২০২২ ০০:০১; আপডেট: ২৬ মে ২০২২ ১৫:০৯

ফাইল ছবি

রাজশাহীর বাঘা উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি বাতিলের দাবিতে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (১৫ জানুয়ারী) বিকেল ৫টায় উপজেলার বাউসা ইউনিয়নের আড়পাড়া বাজারে বিএনপি দলীয় কার্যালয়ে এই প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা ও উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য অধ্যাপক জাহাঙ্গীর হোসেন।

উপজেলা যুবদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক নবাব আলীর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন আড়ানী পৌরসভার সাবেক মেয়র ও সাবেক সভাপতি নজরুল ইসলাম, উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য হোসেন কবির চন্দন, পাকুড়িয়া ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি আব্দুর রউফ, গড়গড়ি ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি তোজ্জামেল হক তাজু, উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন পলাশ, উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম স্বপন, মনিগ্রাম ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক, বাউসা ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক একাব উদ্দিন মাষ্টার, বাউসা ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক প্রচার সম্পাদক এন্তাজ আলী, গড়গড়ি ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক, বাউসা ইউনিয়ন যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, বাউসা ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মীর মোফাকবর হোসেন বাবলু, বিএনপির নেতা জাহাঙ্গীর হোসেন, আব্দুর সাত্তার প্রমুখ।

এ বিষয়ে জেলা ও উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য অধ্যাপক জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি ৭টি ইউনিয়নে দলীয় বিধিবহির্ভূতভাবে ইউনিয়নের আহবায়ক কমিটি গঠন না করে পকেট কমিটি গঠন করছেন। যে সকল ইউনিয়নে পকেট কমিটি করা হয়েছে এবং ও উপজেলা আহবায়ক কমিটি বাতিল করে নতুন আহবায়ক কমিটি গঠনের দাবি জানান।
আড়ানী পৌরসভার সাবেক মেয়র ও সাবেক পৌর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম বলেন, আড়াই বছর আগে উপজেলায় ২৯ সদস্য বিশিষ্ঠ আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটি গঠন হওয়ার পর কোন সভা করা হয়নি। উপজেলা বিএনপির আহবায়ক ও সদস্য সচিব নিজের মনগড়াভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। কোন কোন কমিটিতে আওয়ামীলীগের সমর্থিত মানুষের নাম রয়েছে। তারা বাড়ীতে বসে বিভিন্ন ইউনিয়টের কমিটি গঠন করছেন।
এদিকে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন পলাশ বলেন, বাউসা ইউনিয়ন বিএনপির নির্বাচনে দিন ঘোষণা করা হয়। সেই মোতাবেক সভাপতি পদে ১০ হাজার টাকা, সাধারণ সম্পাদক পদে ৮ হাজার টাকা ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদে ৬ হাজার টাকায় মনোনয়নপত্র বিক্রি করা হয়। পরে দুটি তারিখ পরিবর্তন করে ১ নভেম্বর নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করলেও পরে অজ্ঞাত কারণে স্থগিত করা হয়েছে। তৃণমূল নেতৃত্বের মতামতের ভিত্তিতে কমিটি গঠনের দাবি জানান তিনি।

এদিকে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক ফকরুল হাসান বাবলু বলেন, ১৮ জানুয়ারী বাউসা ইউনিয়ন কমিটি গঠন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। সকল ভোটাদের অংশগ্রহনে ভোট না করে ৯টি ওয়ার্ড়ের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকের ভোটের মাধ্যমে কমিটি করা হবে। এই দুর্যোগ মূহুর্তে সচ্ছতার সাথে কমিটি গঠন করার চেষ্টা করছি। ইতিমধ্যেই মনিগ্রাম ইউনিয়ন ও বাঘা পৌর কমিটি ভোটের মাধ্যমে করা হয়েছে। কেউ কেউ আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছে।

 



বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top