ইউসেপ বাংলাদেশের উদ্যোগে ‘চেইনী দিবস’ পালিত

রাজটাইমস ডেস্ক | প্রকাশিত: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০৬:০৬; আপডেট: ২২ অক্টোবর ২০২১ ১৯:২৭

ছবি: সংগৃহীত

বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ইউসেপ বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা লিন্ডসে এ্যালান চেইনীর স্মরণে আজ যথাযোগ্য মর্যাদায় ‘চেইনী দিবস’ পালিত হয়েছে। যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ইউসেপ বাংলাদেশের প্রধান ও আঞ্চলিক কার্যালয়সমূহ নানা কর্মসূচির মাধ্যমে দিনটি পালন করে।

বুধবার ছিল চেইনীর ৩৫তম মৃত্যুবার্ষিকী। ১৯৩১ সালে তিনি নিউজিল্যান্ডে জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৯৮৬ সালে ১৫সেপ্টেম্বর তার মৃত্যু হয়। ঢাকার নারিন্দায় খ্রিস্টান সেমেটারিতে স্মরণ সভার আয়োজন করা হয়। ইউসেপ বাংলাদেশের চেয়ারপার্সন পারভীন মাহমুদ এফসিএ এবং নির্বাহী পরিচালক মো. আবদুল করিম এ্যালান চেইনীর কবরে পুস্প—বক অর্পণ করে তাকে গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।

স্মরণ সভায় পারভীন মাহমুদ বাংলাদেশের দারিদ্রপীড়িত ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের শিক্ষাদানের ক্ষেত্রে চেইনীর মানবিক ভূমিকার কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, একজন বিদেশী হওয়ার পরও চেইনী বাংলাদেশের শিক্ষা বিস্তার ও অন্যান্য সামাজিক দায়বদ্ধতা কর্মসূচিতে যে ভূমিকা রেখেছেন তাতে তিনি এদেশের মানুষের কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। আগামীতে ইউসেপ বাংলাদেশের পক্ষ থেকে মৃত্যুদিবসের পাশাপাশি চেইনীর জন্মদিবসকে যথাযগ্যে মর্যাদায় পালন করা হবে বলে তিনি জানান।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশে নিউজিল্যান্ডের অনরারি কনসাল নিয়াজ আহমেদ। এ সময় ইউসেপ বোর্ড অব গভনর্স এবং ইউসেপ অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যবৃন্দ, ইউসেপের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাবৃন্দ এবং প্রাক্তন শিক্ষার্থীরাও বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু লিন্ডসে এ্যালান চেইনীর প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

মানব-হিতৈষী এ্যালান চেইনী ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের পর একটি আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার মাঠকর্মী হিসেবে বাংলাদেশে এসেছিলেন। সে সময় দুঃস্থ ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ কাজে লিপ্ত থাকতে দেখে উনি তাদের জন্য কিছু করার চিন্তা করেন। সেই ভাবনা থেকেই ১৯৭৩ সালে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জীবনমান উন্নয়ন, শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ পরিচালনার জন্যে প্রতিষ্ঠা করেন ইউসেপ বাংলাদেশ, যা বর্তমানে প্রতিবছর প্রায় ৩৫ হাজার শিশু-কিশোর ও যুবাদের শিক্ষা, দক্ষতা বৃদ্ধি ও শোভন কাজে সহায়তা প্রদান করছে।

সূত্র: বাসস/এএস



বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top