সর্বকালের সেরা ভারতীয় সিনেমার খেতাব পেলো ‘পথের পাঁচালী’

সর্বকালের সেরা ভারতীয় সিনেমার খেতাব পেলো ‘পথের পাঁচালী’

রাজটাইমস ডেস্ক | প্রকাশিত: ২৩ অক্টোবর ২০২২ ২০:৩৭; আপডেট: ৯ ডিসেম্বর ২০২২ ০৯:০০

পথের পাঁচালী সিনেমার একটি দৃশ্যে অপু

কখনও কী ভেবে দেখেছেন, ভারতের সেরা সিনেমা কোনটি? সেই প্রশ্নের উত্তর মিলেছে এবার। সম্প্রতি ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অফ ফিল্ম ক্রিটিক্স -এর তরফ থেকে সত্যজিৎ রায়ের ‘পথের পাঁচালী’কে সর্বকালের সেরা ভারতীয় সিনেমার খেতাব দেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, ভারতীয় সিনেমার ইতিহাস ঘেটে বের করে আনা হয়েছে সেরা ১০টি সিনেমা। সেরা ১০ এর মধ্যে ৩টি রয়েছে ওপার বাংলার সিনেমা।

ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অফ ফিল্ম ক্রিটিক্স বা ফেপিরেস্কি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ১৯৩০ সালে। কান ও ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবের মতো এই সংগঠনটি সেরা সিনেমাগুলোকে প্রতি বছর পুরস্কার দিয়ে থাকে। ফেপিরেস্কির ৩০ জন সদস্যের ভোটে তালিকার শীর্ষে আছে সত্যজিত রায় পরিচালিত ১৯৫৫ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা ‘পথের পাঁচালী’। মুক্তির এতো বছর পরেও অনেক নির্মাতা এখনও প্রেরণা খুঁজেন ‘পথের পাঁচালী’ থেকে।

তালিকার দ্বিতীয় স্থানে আছে জনপ্রিয় পরিচালক ঋত্বিক ঘটকের বাংলা সিনেমা ‘মেঘে ঢাকা তারা’। সত্যজিতের ‘পথের পাঁচালী’ ছিল ‘অপু ট্রিলজি’র প্রথম কিস্তি। ঋত্বিকের সিনেমাটিও তার ‘দেশভাগ ট্রিলজি’র প্রথম কিস্তি।  

তালিকার তৃতীয় স্থানে আছে মৃণাল সেন পরিচালিত হিন্দি সিনেমা ‘ভুবন সোম’। এ সিনেমাকে ভারতের নিউ ওয়েভ সিনেমার অন্যতম পথপ্রদর্শক বলে মনে করা হয়। এ সিনেমার জন্য পরিচালক মৃণাল সেন ও অভিনেতা উৎপল দত্ত জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পেয়েছিলেন।

তালিকার চতুর্থ স্থানে আছে মালয়ালম পরিচালক আদুর গোপালকৃষ্ণনের সিনেমা ‘এলিপ্পাথায়াম’। সিনেমাটি কান চলচ্চিত্র উৎসবে প্রিমিয়ারের পর লন্ডন চলচ্চিত্র উৎসবে ব্রিটিশ ফিল্ম ইনস্টিটিউটের বার্ষিক পুরস্কার জেতে। এক সাক্ষাৎকারে পরিচালক জানিয়েছিলেন, নিজের পরিবারের সামন্ততান্ত্রিক বৈশিষ্ট্য থেকে সিনেমার প্রেরণা নিয়েছেন তিনি। 

তালিকার পঞ্চম স্থানে আছে গিরিশ কাসারাভাল্লি পরিচালিত কন্নড় সিনেমা ‘ঘাটশ্রাদ্ধ’। ষষ্ঠ স্থানে আছে হিন্দি সিনেমা ‘গরম হাওয়া’। দেশভাগ নিয়ে নির্মিত অন্যতম সেরা চলচ্চিত্র মনে হয় করা হয় এটিকে।

সর্বকালের সেরা ভারতীয় সিনেমার তালিকায় রয়েছে সত্যজিতের দ্বিতীয় সিনেমা ‘চারুলতা’। তালিকার তিনিই একমাত্র পরিচালক, যার দু’টি সিনেমা এ তালিকায় রয়েছে। তার সিনেমাটি ফেপিরেস্কির সপ্তম স্থানে আছে। তালিকার অষ্টম স্থানে ‘অঙ্কুর’। হায়দরাবাদে ঘটে যাওয়া সত্য ঘটনা অবলম্বনে তৈরি হয়েছিল এ সিনেমাটি। এই সিনেমা দিয়ে নির্মাতা হিসেবে যাত্রা শুরু করেন শ্যাম বেনেগাল। সিনেমাটি নির্মিত হয় স্থানীয় কৃষকদের অর্থায়নে।

বাণিজ্যিক ও শৈল্পিক ঘরানার সিনেমার মিশ্রণের অন্যতম সেরা উদাহরণ মনে করা হয় গুরু দত্তের ‘পিয়াসা’ সিনেমাটিকে। এবার এটি জায়গা পেয়েছে ফেপিরেস্কির নবম স্থানে। রমেশ সিপ্পি পরিচালিত সফল বাণিজ্যিক সিনেমা ‘শোলে’। মুক্তির পর ২০ বছর ধরে ভারতের সবচেয়ে বেশি আয় করা সিনেমা ছিল এটি। এবার এই সিনেমা জায়গা পেয়েছে ফেপিরেস্কির দশম স্থানে।

যুগে যুগে মুক্তি পায় বহু সিনেমা। তবে কিছু সিনেমা দর্শকদের মনে এমনভাবে জায়গা করে নেয় যে সিনেমাগুলোর আবেদন থাকে অগণিত দিন। সত্যজিতের ‘পথের পাঁচালী’ কিংবা ‘শোলে’র মতো সিনেমাগুলো তারই উদাহরণ।

 



বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস
এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top