ক্যান্সার থেকে সুরক্ষা দেয় শুকনো টমেটো

রাজটাইমস ডেস্ক:  | প্রকাশিত: ৭ নভেম্বর ২০২৩ ১০:৫৫; আপডেট: ১৬ জুন ২০২৪ ০৯:২৩

ছবি: সংগৃহিত

সারা বছর স্বাদ পেতে জনপ্রিয় হচ্ছে রোদে শুকানো টমেটো। শীতকালীন এই সবজি এভাবে শুকিয়ে খেলে প্রচুর পুষ্টি মেলে শরীরে। এমনকি ক্যন্সার প্রতিরোধেও ভূমিকা রাখে প্রক্রিয়াজাত এই খাবার।

টমেটো শীতকালিন জনপ্রিয় রঙিন সবজি। লাল টকটকে টমোটোর মনোহরি স্বাদ কার না মন কাড়ে। তাই তো সারা বছর এর স্বাদ আস্বাদনে সাধ মেটাচ্ছে শুকনো টমেটো।

কেটে কড়া রোদে শুকিয়ে বানানো যায় এই শুকনো টমেটো। পেস্ট বা পাউডার করে সারা বছরই ব্যবহার করা যায় স্যান্ডউইচ, পিৎজা, পাস্তাসহ নানা খাদ্য প্রণালীতে। পুষ্টি বিলাসেও এর জুড়ি মেলা ভার।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শুকনো টমেটোতে আছে কাচা বা পাকা থেকেও বেশি এন্টিঅক্সিডেন্ট। পটাসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজের মতো অতিপ্রয়োজনীয় খনিজ ছাড়াও ভিটামিন, প্রোটিন আর ফাইবারে সমৃদ্ধ এই শুকনো খাবার।

পুষ্টি বিজ্ঞানী ড. মনিরুল ইসলাম বলেন, শুকনো টমেটো মানবদেহের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এতে ভিটামিন সি, এন্টিঅক্সিডেন্ট বিশেষ করে লাইকোপেন প্রচুর পরিমাণে আছে। এছাড়া ম্যাগনেসিয়াম, জিঙ্ক এবং উচ্চমাত্রায় পটাশিয়াম রয়েছে। এই টমেটো প্রতিদিন গ্রহণ করলে বাড়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখার পাশপাশি হার্টের স্বাস্থ্যও ভালো রাখে খাদ্যটি। ত্বক ও চুলের নানা সমস্যা দূর করে। এমনকি সুরক্ষা দেয় ক্যান্সার থেকেও।

ড. মনিরুল বলেন, টমেটো কাচা, পাকা, পাউডার, পেস্ট-সব অবস্থাতেই খাওয়া যায়। হাঁটা, বসা, জেগে, ঘুমিয়েও গ্রহণ করা যায়।

৮ থেকে ১৪ কেজি পাকা টমেটো থেকে তৈরি হয় ১ কেজি শুকনো টমেটো।




বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস
এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top